পুরাতন ইট সংগ্রহ করতে গিয়ে প্রাণ হারালো তারা

gaibandha-b

কদিন ধরেই এলাকার পুরাতন সেতু ভেঙে নির্মাণ করা হচ্ছে নতুন সেতু। ভাঙার পরেও সেতুর দুধারে মাটির নিচে থেকে গিয়েছিল কিছু পুরাতন ইট। সেসব ইট সংগ্রহ করে বাড়িতে নিয়ে আসার চেষ্টা করে আশপাশের বাসিন্দারা।

সোমবার সন্ধ্যার পর সেতু এলাকা জনশূন্য হয়ে পড়লে দুই গ্রামের ১২ থেকে ১৫ জন নারী-পুরুষ সেখানে যায়। সেতুর দুপাশ থেকে পুরাতন ইট খুলে নিতেই একপাশের মাটি ধসে পড়ে তাদের ওপর। ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারায় এক নারীসহ তিনজন। আর আহত হয় তিনজন।

সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে সাদুল্যাপুর উপজেলার জয়েনপুর-মন্দুয়ার গ্রামের নংকেরশ্বর ব্রিজ এলাকার সাদুল্যাপুর-গাইবান্ধা সড়কে।

নিহতরা হলেন- সাদুল্যাপুর উপজেলার বনগ্রাম ইউনিয়নের জয়েনপুর গ্রামের মোল্লার ছেলে আবদুস সাত্তার (৫৫), একই ইউনিয়নের নুর আলমের মেয়ে কাকলি (৩০) ও আবিসান মিয়ার ছেলে কুদ্দুস (৩০)।

গুরুতর আহত আরফি (১৫), সেলিনা (৪০) ও মিনারাকে (২৫) সাদুল্যাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের দেয়া হয়েছে প্রাথমিক চিকিৎসা।

স্থানীয়রা জানায়, সম্প্রতি গাইবান্ধা-সাদুল্যাপুর পাকা সড়ক প্রশস্তকরণের কাজ চলছিল। এ কারণে নংকেরশ্বর ব্রিজ এলাকার পুরাতন সেতুটি ভেঙে নতুন সেতু নির্মাণ কাজ শুরু হয়। এর আগে পুরাতন সেতু ভেঙে ফেলা হয়। সেই ভেঙে ফেলা সেতুর দুই পাশে মাটির নিচে কিছু পুরাতন ইট ছিল।

সোমবার সন্ধ্যার দিকে জয়েনপুর ও মন্দুয়ার গ্রামের ১২-১৫ জন নারী ও পুরুষ ইট আনার জন্য সেতুর নিচে যায়। তারা ইট টেনে টেনে খুলে ফেলার সময় হঠাৎ করেই সেতুর পূর্বপাশের মাটি তাদের ওপর ধসে পড়ে। এতে তিনজন মারা যায়। আহত হয় অন্তত সাতজন।

সাদুল্যাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফরহাদ ইমরুল কায়েস বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। মাটির নিচে আরও কেউ আছে কিনা সে জন্য উদ্ধার তৎপরতা চালানো হচ্ছে।

এ সম্পর্কিত আরো লেখা