কানাডার দ্যা পার্লামেন্টারী পয়েট লরিয়েট হলেন জর্জ এলিয়ট ক্লার্ক

114

৫ জানুয়ারি কানাডার সরকার কবি লেখক জর্জ এলিয়ট ক্লার্ককে ঘোষণা দেন কানাডার দ্য পার্লামেন্টারী পয়েট লরিয়েট হিসাবে। সহজভাবে বলা যায় কানাডার সভাকবি। তিনি লেখক মিশেল প্লিও এর স্থলাভিসিক্ত হলেন দুই বছরের জন্যে। দ্য পার্লামেন্টারী পয়েট লরিয়েট শুধুই সম্মানজনক পদ নয় রয়েছে সাংবিধানিক ভাবে কিছু সুসপষ্ট দায়ীত্ব। কবি লেখক জর্জ এলিয়ট ক্লার্ক এই পদ অলংকৃত করে কানাডার শিল্প সাহিত্য সংস্কৃতি চর্চায় রাখবেন ব্যাপক অবদান।

সমকালীন সমাজ চেতনায় ঋদ্ধ কানাডার কবি, নাট্যকার ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক জর্জ এলিয়ট ক্লার্ক। পরিশ্রুত ভাষায় ব্যবহৃত তাঁর লেখায় স্পষ্ট হয়ে উঠে অভিজ্ঞতার সারৎসার। তাঁর উচ্চারণ জাতিস্বত্তার ভিত্তিতে করুণ যন্ত্রণার মোড়কে এক তীব্র প্রতিবাদ, বোধের তীক্ষ্ণ আচঁড়। আশা আখাংকা ও স্বপ্ন নিয়ে হয়ে উঠেন আশা জাগানিয়া।

কবি জর্জ এলিয়ট ক্লার্কের জন্ম ১২ ফেব্রুয়ারি ১৯৬০ নোভা স্কোশিয়া, কানাডা। আফ্রো-আমেরিকা-কানাডিয়ানের ৭ম প্রজন্ম তিনি। ইংরেজি সাহিত্যের স্নাতক ইউনিভার্সিটি অব ওয়াটারলু , স্নাতকোত্তর ডালহৌসী ইউনিভার্সিটি এবং পিএইচডি করেন কুইন্স ইউনির্ভাসিটি থেকে। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন সাহিত্য পত্রিকা এবং সাহিত্য সংস্থার সঙ্গে জড়িত ছিলেন। সাহিত্যে রয়েছে গবেষণা কর্ম। তিনি কানাডায় ‘আফ্রোকাডিয়া’ নামে এক সাংস্কৃতিক ধারার পরিচিত করেন। পৃথিবীর কয়েকটি ভাষার পাশাপাশি বাংলাভাষায় তার কবিতা অনূদিত হয়েছে।

জর্জ এলিয়ট ক্লার্কের কবিতা ■ বসন্ত আসছে

দীর্ঘ শীতের পর
এক নির্যাতন পেরিয়ে
বসন্ত আসছে ধীরে ধীরে ।
যেন স্বাধীনতা খুব কাছাকাছি।
যদিও এখন পর্যন্ত আসেনি
সেই জন্যে বসন্ত পাথর্নায় আমরা
অপেক্ষা শুধু বিজয়ের।
কখন
কিভাবে
যেখানে উষ্ণতা
সূর্য
বিদীর্ণ করা উচ্চ স্বর
চিৎকার
দেরী করে ঘরে ফেরা
বরফ গলা
সব কিছুকেই স্বাগতম।
বসন্ত আসছে ধীরে ধীরে।

অনুবাদ : পারভেজ চৌধুরী।

এ সম্পর্কিত আরো লেখা