প্রতি বছর মা হচ্ছে ২ হাজার অনুর্ধ্ব-১৬ কিশোরী

Romanian Mother

‘প্রভু আমাকে খুব সুন্দর একটা মেয়ে দিয়েছে। তবে আমার জীবনটা খুব কঠিন হয়ে গিয়েছে, কারণ আমি নিজেও তো এখনও শিশু।’ কাঁদো কাঁদো গলায় কথাগুলো বলছিল ১৫ বছরের লোরেনা। তার থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরেই থাকে আর এক পঞ্চদশী মা ডায়না। তার অসহায় গলায় শোনা যায়, ‘যখন জানতে পারলাম আমি অন্তঃসত্ত্বা, তখন চিত্‍‌কার করে কেঁদে উঠেছিলাম। মুহূর্তে নাটকীয়ভাবে বদলে গেল আমার জীবন। আমার বয়সি মেয়েদের সঙ্গে খেলা করাটা খুব মিস করি।’
লোরেনা ও ডায়নার মতোই অবস্থা রোমানিয়ার হাজার হাজার কিশোরীর। প্রতি বছর সেখানে ২,০০০ অনুর্ধ্ব ১৬ কিশোরী মা হচ্ছে। অনেকে আবার মা হচ্ছে ১২ বছর বয়সেই। ২০১৫ সালের ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের পরিসংখ্যানগত অফিস ইউরোস্যাটের দেওয়া তথ্য বলছে, ২০১৩ সালে রোমানিয়ায় যাঁরা প্রথম সন্তানের মা হয়েছেন, তার মধ্যে ১৫.৬%-ই হল কিশোরী মা। ইইরোপিয়ান ইউনিয়নে এমন পরিসংখ্যান সর্বাধিক রোমানিয়াতেই। বুলগেরিয়ায় প্রথম সন্তানের ক্ষেত্রে কিশোরী মা ১৪.৭% শিশুর।
রোমানিয়ান ইনস্টিটিউট অব স্ট্যাটিসটিক্স বলছে, ২০১৪ সালে ১৮,৬০০ কিশোরী মা সন্তানের জন্ম দিয়েছে। এর মধ্যে ২,২১২ মায়ের বয়স ১২ থেকে ১৫ বছরের মধ্যে। এই শিশু মায়েদের নানারকম শারীরিক ও সামাজিক সমস্যা দেখা দিচ্ছে। বেশিরভাগ কিশোরী মা-ই ড্রপ আউটের শিকার। নিজের শৈশবকে ভুলে বাচ্চা সামলাতে গিয়ে হতাশায় ভুগছে তারা
গুরুতর এই সমস্যার কথা মাথায় রেখে গত বছর মন্ত্রকের সঙ্গে দেখা করে ৬০টি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা। স্কুলে যৌনশিক্ষা দেওয়ার গুরুত্ব নিয়ে আলোচনা হয় তাঁদের মধ্যে। যৌনশিক্ষার মাধ্যমে অপ্রত্যাশিত অন্তঃসত্ত্বা হওয়া যেমন ঠেকানো যাবে, তেমনই যৌনরোগ সংক্রমণও রোখা সম্ভব হবে বলে বোঝায় স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাগুলি।
গত বছর দেশে যৌনস্বাস্থ্যের ব্যপারে একটি নীতিনির্ধারণের জন্য রোমানিয়ার সরকারের কাছে আর্জি জানিয়েছে রাষ্ট্রপুঞ্জের অর্থনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক অধিকাররক্ষা সংস্থা। তবে, কয়েকটি সংস্থা এর বিরোধিতায় মুখর হয়েছে।
#

এ সম্পর্কিত আরো লেখা