পাকিস্তানের সমাজসেবী আব্দুস সাত্তার ইধির ইন্তেকাল

EIDHI

পাকিস্তানের সুপ্রসিদ্ধ সমাজসেবী তথা ইধি ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আব্দুল সাত্তার ইধি ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিঊন। গত শুক্রবার রাতে করাচিতে ৯২ বছর বয়সে তিনি ইন্তেকাল করেন। প্রয়াত সমাজসেবীর শেষকৃত্য আজ তাঁর গ্রামে সম্পন্ন হবে বলে জানিয়েছেন আব্দুল সাত্তারের ছেলে। তিনি জানিয়েছেন, তাঁর বাবার ইচ্ছে অনুযায়ী, যে পোশাক তিনি সর্বদা পরে থাকতেন সেই পোশাকেই তাঁকে সমাধিস্থ করা হবে। আব্দুল সাত্তার তাঁর অঙ্গদান করে গিয়েছেন। কিন্ত তাঁর শরীরে বিভিন্ন অঙ্গ সম্পূর্ণভাবে সচল নয়।তাই শুধুমাত্র কর্নিয়া দান করা করা হয়েছে।
রমন ম্যাগসাসে পুরস্কারজয়ী আব্দুল সাত্তার ইধি পাকিস্তানের সুবিখ্যাত মানবতাবাদী এবং ইধি ফাউন্ডেশনের প্রধান। এই ফাউন্ডেশন পাকিস্তান ছাড়াও বিশ্বের অন্য দেশের সেবামূলক কাজ করে। আব্দুল সাত্তার ইধির স্ত্রী বিলকিস ইধি বিলকিস ইধি ফাউন্ডেশনের প্রধান। ১৯৮৬-তে ইধি দম্পত্তিকে যুগ্মভাবে রামন ম্যাগসাসে পুরস্কারে সম্মানিত করা হয়েছিল।
উল্লেখ্য, কোনওক্রমে পাকিস্তানে ঢুকে পড়া ভারতের মূক ও বধির তরুণী গীতা এই ইধি ফাউন্ডেশনের আশ্রয়েই ছিল। ২০০৩-০৪ সালে লাহৌরে গীতাকে উদ্ধার করে পাকিস্তান বর্ডার গার্ডস। তারা গীতাকে ইধি অনাথ আশ্রমে নিয়ে যায়। এরপর গীতার দেখভাল করে ইধি ফাউন্ডেশন এবং বিলকিস ইধি। গত বছরে গীতাকে এ দেশে ফেরানো হয়। সেই সময় ইধি ফাউন্ডেশনের সদস্যরাও ভারতে এসেছিলেন।
উল্লেখ্য, গীতাকে এক দশকেরও বেশি সময় দেখভালে জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ইধি ফাউন্ডেশনকে এক কোটি টাকা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন। কিন্তু সেবামূলক কাজের জন্য ওই অর্থ গ্রহণ করতে রাজি হননি আব্দুল সাত্তার ইধি।
#

এ সম্পর্কিত আরো লেখা