`নিসের হামলাকারী মুসলিম নয়’

Bad_apple_He_never_prayed

পুলিশ নিসের হামলাকারী অর্থাৎ ট্রাকের চালককে চিহ্নিত করেছে। কিন্তু তার সম্পর্কে এখনও বিশদ কিছু বলা হয়নি। শুধু বলা হয়েছে, সে ৩১ বছর বয়সী এক তরুণ, তিউনিসিয়ান বংশোদ্ভূত ফরাসী নাগরিক।
ফ্রান্সের সংবাদ মাধ্যমগুলোতে তার নাম বলা হচ্ছে, মোহাম্মদ লাওয়েজ বুলেল।
তার কাজিন গণমাধ্যমেক জানিয়েছেন, মোহাম্মদ লাওয়েল বুলেল মুসলিম নয়। সে অ্যালকোহল পান করে স্ত্রীকে পেটাত। নিয়মিত শুকরের মাংস খেত। কখনই সে মসজিদে যায়নি। এগুলো সবই ইসলামে হারাম।
তার কাজিন জানান, এসব কারণে তার স্ত্রীর সাথে তার বিবাহ বিচ্ছেদ মামলা চলছিল। সে কারণে লাওয়েল ছিল বিষাদগ্রস্থ। এই স্ত্রীর গর্ভজাত তার ৩টি সন্তান রয়েছে যাদের বয়স ৫, ৩ বছর এবং ১৮ মাস। পুলিশ তার স্ত্রীকে নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে।
পুলিশ জানিয়েছে, সে এই নিস শহরেই থাকতো। পুলিশের খাতাতেও তার নাম ছিলো কিন্তু সেটা ছিলো ছোটখাটো কিছু অপরাধর জন্যে
কিন্তু যেসব মুসলিম তরুণ উগ্রপন্থার দিকে ঝুঁকে পড়েছিলো সেসব জিহাদিদের তালিকায় তার নাম ছিলো না।
ফরাসী একটি টেলিভিশন চ্যানেল বলছে, পুলিশ নিস শহরে তার বাড়িতে অভিযান চালিয়েছে।
মর্মান্তিক এই হত্যাকাণ্ডের একজন প্রত্যক্ষদর্শী বলেছেন তিনি প্রথমে ঘটনার গুরুত্বই বুঝতে পারেননি।
এখনও পর্যন্ত কোন সংগঠন এই হামলার কৃতিত্ব দাবী করেনি।
পুলিশ ওই লরির ভেতর থেকে কিছু কাগজপত্র উদ্ধার করেছে। পুলিশের কাছে এটা এখনও পরিষ্কার নয় যে চালক একাই হামলা চালিয়েছে নাকি তার সহযোগী কেউ ছিলো।
খবরে বলা হচ্ছে, লরিটি দুদিন আগে আরেকটি শহর থেকে ভাড়া করা হয়েছিলো।
লরির ভেতর থেকে ড্রাইভিং লাইসেন্স, ক্রেডিট কার্ড এবং মোবাইল ফোনও উদ্ধার করা হয়েছে।
হামলাকারীর পিস্তলটি উদ্ধার করা হয়েছে। তবে লরিতে যেসব অস্ত্র পাওয়া গিয়েছিলো, পরে দেখা গেছে সেগুলো খেলনার।
ফলে অনেক বিশ্লেষক আশঙ্কা করছেন যে হামলার পেছনে কোনো জিহাদি গ্রুপও থাকতে পারে।
#

এ সম্পর্কিত আরো লেখা