বোরহানউদ্দিনে ট্রলার ডুবিতে নিখোঁজ জেলের লাশ উদ্ধার

borhanuddin-river

ভোলা প্রতিনিধি : ভোলার বোরহানউদ্দিনে এমভি ফারহান-২ লঞ্চের ধাক্কায় ট্রলার ডুবিতে নিখোঁজ জেলে আরিফের (২৭) লাশ ৩ দিন পর উদ্ধার করা হয়েছে। রোববার সকালে আলিমুদ্দিন-সেল্টার বাজার সংলগ্ন এলাকার মেঘনা তীরে আটকে থাকা আরিফের লাশ দেখে স্থানীয়রা থানা-পুলিশে খবর দিলে পুলিশ ছিন্ন ভিন্ন ওই লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। আরিফ উপজেলার বড়মানিকা ইউনিয়নের ৫ নাম্বার ওয়ার্ডের উত্তর বাটামারা গ্রামের মো. মানিকের বড় ছেলে।
বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে এমভি ফারহান-২ লঞ্চটি পিছনের দিক দিয়ে মাছ ধরা ট্রলার ধাক্কা দিলে ট্রলারে থাকা ৫ মাঝি মাল্লাসহ ট্রলার ডুবে যায়। ওই সময় ৪ জন মাঝি মাল্লাকে উদ্ধার করা করা গেলেও ৩ দিন পর আরিফের লাশ পাওয়া যায়।
ডুবে যাওয়া ট্রলারের মাঝি মোসলেহউদ্দিন অভিযোগ করেন, দুর্ঘটনার দিন লঞ্চ কর্তৃপক্ষকে বার বার আরিফকে উদ্ধারের অনুরোধ করলেও তারা লঞ্চ চালিযে চলে যান। তবে এমভি ফারহান লঞ্চের সুপারভাইজার সোহেল এ অভিযোগ অস্বীকার করেন।
আরিফের বাবা মো. মানিক জানান, তার ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে। এ হত্যার বিচার চেয়ে তিনি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন।
ওই ঘটনার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশের উপ-পরিদর্শক মো. ইদ্রিস জানান, আরিফ নিখোঁজের দিনই একটি সাধারণ ডায়রি (জিডি) করা হয়েছে। লাশের কয়েকটি স্থানে কেটে যাওয়া ক্ষত চিহ্ন দেখা গেছে। নিহতের লাশ ময়না তদন্তের জন্য ভোলা সদরে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনি পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে।
#

এ সম্পর্কিত আরো লেখা