রোহিঙ্গা সংকট মোকাবেলায় চাহিদার ৩৪ শতাংশ অর্থ সংগ্রহ

myanmar-rohingya-bangladesh

রোহিঙ্গা শরণার্থী সংকট মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় অর্থের মাত্র ৩৪ শতাংশ এখন পর্যন্ত সংগ্রহ করা সম্ভব হয়েছে। আন্তর্জাতিক মানবিক সহায়তাকারী সংগঠনগুলোর জোট ইন্টার সেক্টর কো-অর্ডিনেশন গ্রুপ সংকটের শততম দিনে সার্বিক বিষয় নিয়ে করা একটি প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।
শরণার্থীদের জায়গা দেয়া স্থানীয় বাসিন্দাসহ মোট ১২ লাখ মানুষকে সহায়তা দেয়ার জন্য প্রয়োজনীয় ৪৩৪ মিলিয়ন পাউন্ডের মাত্র ৩৪ শতাংশ এখন পর্যন্ত সংগ্রহ করা সম্ভব হয়েছে। কক্সবাজারে ৮ লাখ ৩০ হাজারের বেশি রোহিঙ্গা রয়েছে; যাদের ৬ লাখ ২৫ হাজার ২৫ আগস্টের পর মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। শরণার্থীরা দশটি আলাদা শিবিরে ও সেখানকার স্থানীয়দের আশ্রয়ে রয়েছেন।
এর মধ্যে একটি ক্যাম্প পৃথিবীর বৃহত্তম ও সবচেয়ে দ্রুত বাড়তে থাকা শরণার্থী শিবিরে পরিণত হয়েছে, যেখানে অল্প জায়গায় গাদাগাদি করে প্রায় ৫ লাখ মানুষ প্রাথমিক স্বাস্থ্য বা চিকিৎসাসেবা ছাড়া থাকছেন। গত ২৫ আগস্ট থেকে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত নেয়া তথ্য বিশ্লেষণ করে প্রতিবেদনটি তৈরি করেছে ইন্টার সেক্টর কো-অর্ডিনেশন গ্রুপ।
শরণার্থী ও তাদের জায়গা দেয়া স্থানীয় বাসিন্দাদের জন্য ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালনায় মানবাধিকার সংস্থাগুলো ও বাংলাদেশ সরকারের ভূমিকা তুলে ধরা হয় প্রতিবেদনে। এতে বলা হয়, সাহায্যের প্রয়োজন রয়েছে এমন ১২ লাখ মানুষের অর্ধেকের কাছ পর্যন্ত পৌঁছাচ্ছে সহায়তা। প্রতিবেদনে ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালনার নানা সমস্যাও তুলে ধরা হয়। সূত্র : বিবিসি বাংলা।

এ সম্পর্কিত আরো লেখা