আবাহনী-মোহামেডানে এখন কোচ নেই!

Mohammedan-Abahani

আবাহনী ও মোহামেডানে কোচ নেই! দেশের দুই জনপ্রিয় দল মাঠে নামছে কোচ ছাড়াই। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন আবাহনীর ক্রোয়েশিয়ান কোচ দ্রাগো মামিচ দলের কাউকে না জানিয়ে সম্প্রতি গোপনে যোগ দিয়েছেন থাইল্যান্ড প্রিমিয়ার লিগের নবাগত চাইনাট হর্নবিলে। লিগের বাকি ম্যাচগুলো প্রধান কোচ ছাড়াই খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আকাশি-হলুদ জার্সিধারীরা।
মোহামেডান অবশ্য লিগের ফিরতি পর্ব থেকেই কোচ ছাড়া মাঠে নামছে। ভারতীয় কোচ সৈয়দ নাইমুদ্দিন বিদায় নিয়েছেন অনেক আগেই। প্রথম পর্বে আসা-যাওয়ার মধ্যে থাকা এই অভিজ্ঞ কোচকে লিগের বিরতির আগেই বিদায় জানিয়ে দিয়েছিল ঐতিহ্যবাহী সাদা-কালো শিবির। এখন সহকারী কোচ রাশেদ পাপ্পুই তাদের ভরসা!
কিছু দিন আগে চুক্তি শেষ হয়ে যাওয়ার পর মামিচকে কাজ চালিয়ে যাওয়ার অনুরোধ করেছিল আবাহনী। অবশ্য সেটা ছিল মৌখিক, দুই পক্ষের মধ্যে কোনও চুক্তি হয়নি। গত ২২ নভেম্বর মোহামেডানের বিপক্ষে ম্যাচ শেষে ছুটি কাটানোর কথা বলে চলে যান মামিচ, আর ফেরেননি।
লিগের মাঝপথে মামিচের মতো অভিজ্ঞ কোচকে হারিয়ে হতাশ আবাহনী। পয়েন্ট টেবিলের তৃতীয় স্থানে থাকা দলটির ম্যানেজার সত্যজিত দাশ রুপু বলেছেন, ‘লিগের বাকি ম্যাচগুলোতে কাজ করার জন্য মামিচকে অনুরোধ করেছিলাম আমরা। ছুটির কথা বলে তিনি যে অন্য দলে যোগ দেবেন, বুঝতেই পারিনি। আমরা এখন আর নতুন কোচ আনতে চাচ্ছি না। স্থানীয় সহকারী কোচদের অধীনেই বাকি ম্যাচগুলো খেলবো।’
নতুন কোচ আনতে না চাওয়ার কারণ কী? রুপুর ব্যাখ্যা, ‘নতুন কোচ এলে দল নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে পারেন, আর তা দলের পারফরম্যান্সে বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে।’
আবাহনীর দীর্ঘ দিনের পরীক্ষিত কোচ অমলেশ সেন মারা গেছেন গত অক্টোবরে। সাধারণত বিদেশি কোচ না থাকলে তিনি কোচের দায়িত্বে থাকতেন। জাতীয় দলের সাবেক তারকার প্রয়াণে আবাহনী তাই সমস্যায়।
চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর মতো মোহামেডানও কোচ নিয়ে ভাবছে না। লিগ টেবিলে ষষ্ঠ স্থানে থাকা দলটির ম্যানেজার আমিরুল ইসলাম বাবু বলেছেন, ‘নাইমুদ্দিনকে এনে কী হবে? তাকে ছাড়াই দল ভালো খেলছে। আপাতত কোচ আনা হবে না।’

এ সম্পর্কিত আরো লেখা