কংগ্রেস সভাপতি পদে মনোনয়ন পেশ রাহুলের

Rahul Gandhi

সোমবার দলীয় সদর দফতরে কংগ্রেস সভাপতি পদে নির্বাচনে মনোনয়ন পেশ করলেন রাহুল গান্ধী। আর কোনও মনোনয়ন জমা পড়েনি। তাই মা সনিয়া গাঁধীর স্থলাভিষিক্ত হওয়াটা রাহুলের কাছে সময়ের অপেক্ষা মাত্র। সোমবার সকাল সাড়ে দশটা নাগাদ ২৪, আকবর রোডে যান কংগ্রেস সহ-সভাপতি। দলীয় সদর দফতরে যাওয়ার আগে তিনি মা তথা কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহ ও প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করেন।
এরপর মনমোহনসহ দলের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে দলীয় দফতরে যান রাহুল। সভাপতি পদে রাহুলের নামের অন্যতম প্রস্তাবক সনিয়া কিন্তু দলীয় দফতরে ছিলেন না।
দলীয় কার্যালয়ে দাঁড়িয়ে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন বলেছেন, কংগ্রেসের ‘ডার্লিং’ রাহুল গান্ধী। তিনি বলেন, সনিয়া গান্ধী সভানেত্রী পদে ১৯ বছর দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। কংগ্রেসের মাধ্যমে গত ১৯ বছর ধরে দেশের সেবা করেছেন সনিয়া। এবার সেই লক্ষ্যে আরও একটি পদক্ষেপ। কংগ্রেস দলের মহান ঐতিহ্যকে এবার এগিয়ে নিয়ে যাবেন রাহুল।
সোমবার সকাল ১১টায় মনোনয়ন পেশ করেন ৪৭ বছরের রাহুল। মনোনয়ন পত্রে রাহুলের নাম প্রস্তাব করেন সনিয়া, মোতিলাল ভোরা, আহমেদ পটেল, মহসিনা কিদোয়াই, কমলনাথ, অশোক গেহলট, মুকুল ওয়াসনিক,শীলা দিক্ষীত, তরুণ গগৈ এবং পন্ডচেরির মুখ্যমন্ত্রী ভি নারায়ণস্বামী। দ্বিতীয় মনোনয়ন পত্রে প্রস্তাবক হিসেবে নাম রয়েছে, মনমোহন, অস্কার ফার্নান্ডেজ, পি চিদম্বরম, সুশীল কুমার সিন্ডে, আনন্দ শর্মা, জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া, কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী সিদ্দারামাইয়া ও মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রী মুকুল সাংমা।
দলের কেন্দ্রীয় নির্বাচনী কর্তৃপক্ষের প্রধান মুল্লাপল্লী রামচন্দ্রন জানিয়েছেন, রবিবার পর্যন্ত অন্য কোনও মনোনয়নপত্র জমা পড়েনি।
কংগ্রেস নেতা রণদীপ সুরজেওয়ালা জানিয়েছেন, মনোনয়ন পেশের আগে রাহুল মনমোহন ও প্রণবের আশীর্বাদ নিয়েছেন।

এ সম্পর্কিত আরো লেখা