ডোকলামে স্থায়ীভাবে মোতায়েন ১,৮০০ চিনা জওয়ান, সতর্ক ভারত

সিকিম-ভুটান-তিব্বত সীমান্তের ডোকলাম অঞ্চল নিয়ে ভারত, চিন ও ভুটানের বিবাদ আপাতত মিটে গেলেও, এই অঞ্চল থেকে সেনা সরানোর বদলে সেখানে স্থায়ীভাবে ১,৬০০ থেকে ১,৮০০ জওয়ান মোতায়েন করেছে চিন। একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে এমনই খবর প্রকাশিত হয়েছে। ভারতের নিরাপত্তা বিষয়ক সংস্থাগুলি জানিয়েছে, চিনা জওয়ানরা ডোকলাম অঞ্চলে দু’টি হেলিপ্যাড, রাস্তা, অসংখ্য ছাউনি ও ঘর তৈরি করেছে। এই প্রথম শীতকালে ডোকলামে সেনা মোতায়েন করেছে চিন। প্রচণ্ড ঠান্ডার মোকাবিলা করার জন্য সবরকম ব্যবস্থা নিচ্ছে চিনা সেনা।
এক আধিকারিক বলেছেন, ‘ভারতীয় সেনাবাহিনীর বাধায় ডোকলামের দক্ষিণ দিকে রাস্তা বাড়াতে পারেনি চিন। কিন্তু এই ঘটনার জেরেই তারা এই অঞ্চলে স্থায়ীভাবে সেনা মোতায়েন করেছে। অতীতে প্রতি বছর এপ্রিল-মে ও অক্টোবর-নভেম্বরে ডোকলামে এসে এই অঞ্চলকে নিজেদের বলে প্রমাণ করার চেষ্টা করত চিনের সেনাবাহিনী। কিন্তু ডোকলামে ভারত ও চিনের সেনাবাহিনীর ৭৩ দিন ধরে চলা সংঘাতের পরে সেখানে রয়ে গিয়েছে। ভারত যে অঞ্চলকে ভুটানের অংশ বলে গণ্য করে, সেখানে এবারই প্রথম শীতকালে রয়ে গিয়েছে চিনের সেনা। তবে নতুন করে ভারত-চিন সেনার সংঘাত তৈরি হয়নি।’
সেনাপ্রধান জেনারেল বিপীন রাওয়াত সেপ্টেম্বরেই বলেছিলেন, পেশিশক্তির আস্ফালন সহ বিভিন্ন উপায় অবলম্বন করে ডোকলামকে নিজেদের অংশ বলে প্রমাণ করার চেষ্টা চালিয়ে যাবে চিন। ওই অঞ্চলে চিনের সেনাবাহিনীর বর্তমান অবস্থানে সেটাই মনে হচ্ছে। ভারতীয় সেনাবাহিনী পরিস্থিতির উপর নজর রাখছে। সূত্র : এবিপি আনন্দ।

এ সম্পর্কিত আরো লেখা